Beauty tips

প্রাকৃতিক ভাবে ছেলেদের চুল সোজা করার উপায়

আজকে ছেলেদের চুল সোজা করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। জন্মগতভাবে কারো চুল অনেক সিল্কি আবার কারো চুল কোঁকড়ানো। প্রতিটি মানুষ যেরকম ব্যতিক্রম তাদের পছন্দ ব্যতিক্রম। যাদের চুল হালকা কোঁকড়ানো কিন্তু তাদের পছন্দ সোজা চুল তাদের জন্য কিছু টিপস শেয়ার করবো যেগুলো অনুসরণ করলে খুব ভালো ফলাফল পাবেন।

একটা মানুষের সৌন্দর্যের বেশিরভাগ অংশ বহন করে তার সুন্দর চুল। একটা সুন্দর  চুলের স্টাইল কিন্তু আপনার পুরো লুক চেঞ্জ করে দিতে পারে। তাই বর্তমানে চুল নিয়ে সবাই খুব সিরিয়াস। চুল যদি সোজা বা সিল্কি হয় তাহলে কিন্তু সত্যি দেখতে খুব আকর্ষণীয় লাগে। তাই কিছু মানুষ তাদের চুল সোজা করার জন্য জেন্টস পার্লারে হিট দেওয়ার জন্য চলে যায়। তারপর বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকারক মেডিসিন ব্যবহার করে চুল সোজা করা হয় যা চুলের জন্য খুবই ক্ষতিকারক।

তাই আমার পরামর্শ থাকবে আপনার এই কাজটি কখনো করবেন না এতে করে আপনার চুল পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়। একবার চিন্তা করে দেখুন কিছু সময়ের জন্য চুল সোজা করা ভালো নাকি সারাজীবন মাথায় চুল রাখা ভালো। তাই আমি আজকে আপনাদের সাথে প্রাকৃতিকভাবে চুল সোজা করার উপায় সম্পর্কে কিছু টিপস শেয়ার করবো।

চুল সোজা করার উপায়

যাদের চুল একবারে বেশি কোঁকড়ানো তাদেরকে আমি মিথ্যা আশা দিব না সত্যি কথা বলতে তাদের চুল প্রাকৃতিক ভাবে সোজা করা সম্ভব না। কিন্তু যাদের চুল হালকা কোঁকড়ানো বা চুল গুলো বেশি বড় করলে হালকা কোঁকড়ানো ভাব চলে আসে তারা এই টিপস গুলো ফলো করলে সত্যিই চমৎকার রেজাল্ট পাবেন।

১।চুল মোড়ানো

চটজলদি চুল সোজা করার উপায় গুলোর মধ্যে চুল মোড়ানোর পদ্ধতি টা খুবই কার্যকর। আপনি যদি কোন পার্টিতে বা কোন জায়গায় ঘুরতে যান তখন চাচ্ছেন আপনার মনের মতন চুলের স্টাইল করতে  তাহলে এই পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন। গোসল করার পর চুলগুলো ভালো ভাবে মুছে নেবেন।

তারপরও চুলগুলো চিরুনি দিয়ে আস্তে আস্তে একদম সোজা করে নিচ করে আঁচড়াবেন। খেয়াল রাখবেন ভিজা চুল বেশি জুড়ে  চিরুনি দিয়ে আঁচড়াবেন না কারণ ভেজা অবস্থা চুল পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে। তারপর চুলগুলোর শুকিয়ে যাওয়ার পর আপনার পছন্দের মতন স্টাইল করে ক্যাপ বা টুপি পড়ুন। এভাবে ২০ থেকে ২৫ মিনিট রাখুন। তারপর টুপি খুলে চিরুনি দিয়ে চুলগুলো একটু ঠিক করে নিন। খেয়াল করে দেখবেন আপনার চুলগুলো অনেক সোজা হয়ে থাকছে।

আরো পড়ুনঃস্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করার উপায়। 2022

২। নারকেল এবং লেবু

চুল সোজা করার উপায় গুলোর মধ্যে নারকেল এবং  লেবু ভালো কাজ করে। নারিকেলের সাথে কয়েক ফোঁটা লেবু মিশিয়ে নিন। তারপর এই মিশ্রণটি ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন। কয়েক ঘণ্টা অপেক্ষা করার পর খেয়াল করে দেখবেন পাত্রটি উপরে একটি ঘন লেয়ার ক্রিম তৈরি হয়েছে। তারপর চুলের আগা থেকে গোড়া ভালমতে মেসেজ করুন তার সাথে সাথে চিরুনি দিয়ে সোজাসুজিভাবে চুলগুলো আঁচড়ান এবং চুলগুলো সোজা করার চেষ্টা করুন। ২০ থেকে ২৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর শ্যাম্পু ব্যবহার করে চুল গুলো ধুয়ে ফেলুন।

৩। নারিকেল তেল

বর্তমান সময়ে এমন একটা অবস্থা তৈরি হয়েছে কোন ছেলে মাথায় তেল ব্যবহার করতে চায়না। কিন্তু তেল চুলের জন্য খুবই উপকারী। আপনার চুল যদি ভাল এবং সিল্কি করতে চান তাহলে অবশ্যই তেল ববহার করতে হবে। আমি বলছি না সারাদিন মাথায় তেল দিয়ে বসে থাকেন। অন্তত চেষ্টা করুন সপ্তাহের মধ্যে ২-৩ দিন গোসলের এক ঘন্টা আগে মাথায় তেল ম্যাসেজ করুন। তারপর গোসলের সময় শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তাহলে আপনার চুলের স্বাস্থ্য  যেমন ভালো থাকবে তার সাথে চুলগুলো অনেক সিল্কি হবে।

৪।বাদাম তেল ও ডিম

বাদাম তেল ও ডিম ব্যবহার করে আপনার চুলগুলো খুব সহজে সিল্কি করে তুলতে পারেন। বাদাম তেল একটি ইমোলিয়েন্ট হিসেবে কাজ করে। তার সাথে ডিমে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন যা চুলকে সিল্কি রাখতে সাহায্য করে। যার ফলে সোজা থাকে। যেভাবে মিশ্রণটি তৈরি করবেন প্রথমে ১/৪ কাপ বাদাম তেল ও একটি কাঁচা ডিম একসাথে ভালো ভাবে মিক্সড করে নিবেন। মিক্সড করার পর মিশ্রণটি পেস্টের রূপ ধারণ করবে। তারপর মিশ্রণটি ভালোভাবে চুলে লাগান আপনি চাইলে ব্রাশের এর মাধ্যমে মিশ্রণটি চুলে প্রয়োগ করতে পারেন এতে করে মিশ্রণটি ভালোভাবে চুলে প্রয়োগ হবে। তারপর ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপরে শ্যাম্পু দিয়ে চুল গুলো ভালভাবে ধুয়ে নেবেন। চেষ্টা করুন সপ্তাহে ১-২ দিন এই পদ্ধতিটি ব্যবহার করার। কিছু সপ্তাহ ব্যবহার করার পরে নিজের চোখেই ফলাফল দেখতে পারবেন।

৫। অ্যালোভেরা

যখনই রূপচর্চার কথা আছে তখনই অ্যালোভেরার নাম থাকতেই হবে। সত্যিই রূপচর্চা অ্যালোভেরার কোন তুলনা হয়না। চুল সোজা করার উপায় গুলোর মধ্যে অ্যালোভেরা কিন্তু খুবই চমৎকার কাজ করে। অ্যালোভেরা আপনার চুলকে ময়শ্চারাইজ করে এবং সুরক্ষার একটি স্তর যোগ করে। যা মাথার আদ্রতা দূর করার পাশাপাশি জীবাণু প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। যেভাবে এলোভেরা জেল চুলে প্রয়োগ করবেন তা হচ্ছে প্রথমে ১/৪ কাপ অ্যালোভেরা জেল সাথে ১/৪ যেকোনো হেয়ার অয়েল ভালোভাবে মিক্সড করুন। তারপর এই মিশ্রণটি আপনার চুলে ভালোভাবে প্রয়োগ করুন। তারপর ১০ থেকে ১৫ মিনিট চুলে রেখে অপেক্ষা করুন তারপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২-৩ ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

Follow topics bangla facebook page

Topicsbangla

জানা ও অজানা বিষয় গুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরা আমাদের মূল লক্ষ।আমাদের সাথেই থাকুন আশা করি উপকৃত হবেন।☺☺

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button