Life Style

রাতে ঘুম না আসার কারণ গুলো দেখে নিন

আজকে রাতে ঘুম না আসার কারণ সম্পর্কে আলোচনা করার চেষ্টা করবো। ঘুম আমাদের মানব দেহের জন্য খুবই প্রয়োজন। ঠিকভাবে যদি ঘুম না হয় শরীরে নানা ধরনের রোগ দেখা দিতে পারে। ঘুম স্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দীর্ঘদিন যদি ঘুমের সমস্যায় থাকে তাহলে হূদরোগ, স্থূলতা এবং বিষন্নতা সৃষ্টি হয়। তাহলে চিন্তা করে দেখুন ঘুম শরীরের জন্য কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ। একটি কথা মনে রাখবেন পর্যাপ্ত ভালোমানের ঘুম মানুষের মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য ও শারীরিক স্বাস্থ্য এবং মেজাজ বজায় রাখতে সাহায্য করে।

রাতে ঘুম না আসার কারণ

রাতে ঘুম না আসার কারন গুলোর মধ্যে কিছু দিক জড়িত রয়েছে। আমাদের কিছু বদভ্যাসের কারণে রাতে ঘুম না আসার কারণ হতে পারে। যে কারণগুলোর জন্য রাতে ঘুম আসেনা সেগুলো নিচে আলোচনা করা হলো

১। খারাপ ঘুমের অভ্যাস

আপনার খারাপ ঘুমের অভ্যাস ঘুম না আসার কারণের ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে। ঘুমের জন্য সার্কেল তৈরি করতে হয়। অনেকে আছে যারা সারা রাত জেগে থেকে আবার সারাদিন ঘুমায়। দিনের বেলা বেশি ঘুমানো ফলে রাতে ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায় স্বাভাবিক। তাই এরকম অসময়ে ঘুমানোর অভ্যাস পরিত্যাগ করুন। আর একটি কথা মনে রাখবেন রাতের ঘুম শরীরের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আপনি সারাদিন ঘুমালেও রাতের ঘুমের ঘাটতি পূরণ করতে পারবেন না। তাই সব সময় চেষ্টা করুন রাতে ছয় থেকে আট ঘণ্টা ঘুমানোর।

২।নীল আলো অনিদ্রা

ঘুমানোর এক ঘন্টা আগে ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করা বন্ধ করতে হবে।যে ডিভাইস গুলো থেকে নীল আলো নির্গত করে। এর কারণ হচ্ছে ঘুমানোর জন্য মেলাটোনিন হরমোনের প্রয়োজন হয়। ফিলাডেলফিয়ার জেফারেসন স্লিপ ডিসঅর্ডার সেন্টারের ডিরেক্টর কার্ল ডাঘরামজি বলেন, তিন বা চার ঘণ্টা আগে নীল আলো দেখা যেমন রাতের খাবারের সময় বা কিছুক্ষণ পর টিভি দেখা বা স্মার্টফোন ব্যবহার করার ফলে মেলাটোনিন উৎপাদনে বিলম্ব করার জন্য যথেষ্ট। তাই রাতে ঘুমানোর আগে এক থেকে দুই ঘণ্টা আগে থেকেই ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

৩।মানসিক চাপ

মানসিক চাপ বা কোনো চিন্তা যদি আপনার মাথায় থাকে আর সেই চিন্তা নিয়ে যদি  ঘুমানোর চেষ্টা করেন তাহলে আপনি ব্যর্থ হবেন। কোন কিছু নিয়ে অতিরিক্ত চিন্তা করলে মানুষের মধ্যে এক ধরনের অস্থিরতা সৃষ্টি হয় যার কারণে রাতে সহজে ঘুম ধরে না। তাই রাতে ঘুমানোর আগে অতিরিক্ত চিন্তা করা থেকে বিরত থাকুন।

৪। বিছানা শেয়ারিং

বিচারা শেয়ারিং করার ফলে রাতে ঘুমানোর সময় অসুবিধা হতে পারে। আপনার সাথে যে ব্যক্তি ঘুমাবে সে ব্যক্তির যদি রাতে ঘুমানোর সময় নাক ডাকার অভ্যাস থাকে তাহলে কিন্তু আপনার ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায় স্বাভাবিক। আবার আপনার বিছানার পাশের ব্যক্তি যদি মোবাইল ফোন ব্যবহার করে তাহলে কিন্তু সেই আলোর কারণে আপনার ঘুমের অসুবিধা হবে

৫। ঘুমানোর পরিবেশ

ঘুমানোর পরিবেশ কিন্তু রাতে ঘুম না আসার কারণ এর জন্য দায়ী। তাই আপনি যে বিছানায় ঘুমাচ্ছেন একটু খেয়াল করে দেখেন বিছানাটি অগোছালো কিনা আবার আপনার রুমের মধ্যে এমন কোন ড্রিম লাইট ব্যবহার করবেন না যেটার আলো একটু বেশি যা আপনার ঘুমের ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। তাই ঘুমানোর আগে বিছানা ভালোভাবে পরিষ্কার এবং গুছিয়ে নেবেন।

৬।শেষ কথা

আজকে রাতে ঘুম না আসার যে কারণগুলো সম্পর্কে বললাম সেগুলো যদি সমাধান করার পরেও আপনার রাতে ঘুমাতে সমস্যা হয় বা ঘুম না আসে তাহলে আমার পরামর্শ থাকবে একটি ভালো ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন কারণ ঘুম না আসা টা কিন্তু একটি শারীরিক সমস্যা বা অসুস্থতা। আর চেষ্টা করুন দিনের বেলা কোন শারীরিক পরিশ্রমের কাজ করার জন্য অথবা নিয়মিত ব্যায়াম করার অভ্যাস গড়ে তুলুন।

Follow topics bangla facebook page

আরো পড়ুনঃ

স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি করার উপায়। 2021

মন ভালো করার উপায়।2021

Topicsbangla

জানা ও অজানা বিষয় গুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরা আমাদের মূল লক্ষ।আমাদের সাথেই থাকুন আশা করি উপকৃত হবেন।☺☺

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button