Mobile Review

সেরা এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল এর দাম জেনে নিন

আজকে এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল সম্পর্কে আলোচনা করার চেষ্টা করব। বর্তমান সময়ে প্রতিটা মানুষের হাতে হাতে এন্ড্রয়েড মোবাইল। বিগত কয়েক বছরের মধ্যে এন্ড্রয়েড মোবাইল খুব জনপ্রিয়তা লাভ করেছে, যার কারণে বিশ্বের মধ্যে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীর সংখ্যাই বেশি। আমরা সবাই জানি এন্ড্রয়েড মোবাইল পুরোটাই টাচস্ক্রিনের হয়, যাকে আমরা স্মার্টফোন হিসাবে চিনি। কিন্তু মোবাইলে প্রথম যাত্রা শুরু হয়েছে বাটন মোবাইলের মাধ্যমেই। তাই বর্তমানে যতই টাচস্ক্রিনের  স্মার্টফোন আসুক না কেন,, অনেকে রয়েছেন বাটন মোবাইল ব্যবহার করতেই পছন্দ করেন অথবা যারা একটি স্মার্টফোনের পাশাপাশি সেকেন্ড মোবাইল হিসাবে বাটন মোবাইল ব্যবহার করতে চাচ্ছেন তাদের জন্য আজকের আর্টিকেল সহায়তা হবে। কারণ বর্তমানে মোবাইল কোম্পানিগুলো স্কিন টার্চ ছাড়াও বাটন মোবাইল গুলোতে এন্ড্রয়েড ভার্সন যুক্ত করে মোবাইল বাজারে ছাড়ছে। তাই আজকে আমি আপনাদেরকে জানানোর চেষ্টা করব এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল এর দাম এবং রিভিউ দেওয়ার চেষ্টা করব।

এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল

বর্তমান বাজারে সেরা নিজেই এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল রয়েছে সে মোবাইল গুলোর সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করব তাহলে চলুন শুরু করা যাক

1.Xiaomi Qin F21 Pro Plus

এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল এর তালিকায় সর্বপ্রথম আমি এই মোবাইলটি রেখেছি। কারণ এই মোবাইলটি আকারে ছোট হলেও এর কার্যক্ষমতা কিন্তু অনেক বেশি। তাহলে প্রথমে জেনে নেওয়া যাক এই মোবাইলের স্পেসিফিকেশন তারপর আমার ব্যক্তিগত রিভিউ তো থাকছেই।

এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল

Body

  • Dimensions (HxWxT)
    131 x 53.5 x 9.5 mm (5.16 x 2.11 x 0.37 in)
  • Build Material
    Glass Front
  • Color
    White & Black
  • Weight
    100 g (3.53 oz)

Display

  • Size
    2.8 inches, 24.3 cm2
  • Type
    TFT IPS LCD capacitive touchscreen
  • Resolution
    480 x 640 pixels
  • Pixel Density
    286 ppi density
  • Multitouch
    Yes

Network

  • GPRS: YES
  • EDGE: YES
  • SIM
    Single SIM (Nano-SIM, stand-by)
  • Technology
    GSM / HSPA / LTE
  • 2G Network
    GSM 850 / 900 / 1800 – SIM 1
  • 3G Network
    HSDPA 850 / 900 / 2100
  • 4G Network
    1, 3, 5, 7, 8, 28, 38, 39, 40, 41
  • Speed
    HSPA, LTE

Performance

  • OS
    Android 11
  • Chipset
    Unisoc Tiger T310 (12nm)
  • CPU
    Quad-core (1×2.0 GHz Cortex-A75 & 3×1.8 GHz Cortex-A55)
  • GPU
    PowerVR GE8300
    – 64 bit
Primary Camera
  • Camera
    5MP AF Camera
  • Resolution & Sensor
    2592 x 1944 Pixels
  • Features
    Exposure compensation, ISO control, Continuos Shooting, Digital Zoom, Auto Flash, Face detection, Touch to focus
  • Video
    720p@30fps

Selfie Camera

  • Camera
    2MP FF Camera
  • Resolution & Sensor
    1600 x 1200 Pixels
  • Features
    Face detection
  • Video
    720p@30fps

Memory

  • RAM
    3GB/4GB
  • ROM / Internal
    32GB/64GB
  • Variant
    3GB/32GB & 4GB/64GB
  • External Card slot
    No

Connectivity

  • Wi-Fi
    Wi-Fi 802.11 b/g/n
  • WLAN
    Hotspot
  • Bluetooth
    5.0, A2DP, LE
  • USB
    USB Type-C
  • Infrared port: NO
  • FM Radio
    Unspecified
  • Browser
    HTML 5

Sound

  • Alert types
    Vibration, MP3, WAV ringtones
  • 3.5 mm Audio Jack
    No
  • Loudspeaker
    Yes

Battery

  • Battery Type
    Non-removable Li-Po
  • Battery Capacity
    2120 mAh battery
  • Charging Time
    Up to 2 hours with 7.5W charging

ব্যক্তিগত রিভিউ

ডিসপ্লেঃ  এত ছোট একটি মোবাইলে অসাধারণ ডিসপ্লে যুক্ত করেছে। যা শাওমি ইউজাররা ভালো এক্সপেরিয়েন্স পাবেন। এই মোবাইলটির সম্পন্ন টার্চ ডিসপ্লে, এবং মোবাইলের যে বাটন গুলো রয়েছে সেগুলো শুধুমাত্র প্রিন্ট করা। যা থেকে ব্যবহারকারীরা বাটন মোবাইলের আসল ফিল পাবে।

ক্যামেরাঃ  এই মোবাইলে মেইন ক্যামেরা হিসেবে ৫ মেগা পিকচার এবং সেলফি ক্যামেরা হিসেবে ২ মেগা পিকচার ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে, যার মাধ্যমে আহমরি ছবি তুলতে না পারলেও, মোটামুটি চালিয়ে নেওয়ার মতন ছবি তুলতে পারবেন

পারফরম্যান্সঃ এই মোবাইলে পারফরমেন্সের ক্ষেত্রেও কিন্তু শাওমি কোম্পানি কোন কমতি রাখেনি। কারণ এই মোবাইলের চিপসেট হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে Unisoc Tiger T310 (12nm)  যা দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করতে সক্ষম। তার সাথে ৩ ও ৪ জিবি র্যামের ভারিয়ান্টে এই মোবাইল পাওয়া যাবে যার ফলে এই মোবাইলে পারফরম্যান্স নিয়ে কারো অভিযোগ থাকার কথা নয়।

গেমিংঃ  আমার মনে হয় না কেউ গেম খেলার জন্য এই মোবাইল ক্রয় করবেন। তারপরও কিন্তু এ মোবাইলে   বড় বড় গেম গুলো সাপোর্ট করে যেমন পাবজি, ফ্রী ফায়ার, কল অফ ডিউটি সহ অন্যান্য সব জনপ্রিয় গেম রয়েছে সেগুলো সাপোর্ট করে কিন্তু অনেক ল্যাগের সম্মুখীন হতে হয়। এমনিতেই যেসব ছোটখাটো গেমস আছে সেগুলো খুব সহজেই স্মুথ  ভাবে খেলতে পারবেন

ব্যাটারিঃ  এই মোবাইলের ব্যাটারির ফুল চার্জ হতে দুই ঘন্টার মতন সময় লাগবে এবং প্রায় দুই দিনের মতন চার্জিং বেকাপ পাবেন। মোবাইলে ব্যবহার করা হয়েছে ২১২০ mAh এর শক্তিশালী ব্যাটারি

মূল্যঃ  এখন পর্যন্ত অফিশিয়াল ভাবে বাংলাদেশে এই মোবাইলটি আসেনি কিন্তু খুব শীঘ্রই আসবে এবং এর মূল্য ১০-১২ হাজার টাকার আশেপাশে হবে

2.Geo Phone T19i

এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল গুলোর মধ্যে এই মডেলের মোবাইলটি দ্বিতীয় তালিকায় রেখেছি। কম বাজেটের মধ্যে খুব ভালো মানের একটি মোবাইল। তাহলে প্রথমে জেনে নেওয়া যাক এর স্পেসিফিকেশন তারপর তো আমার রিভিউ থাকছেই

এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল

Body

  • Build Material
    Plastic Body
  • Color
    Blue, Green & Purple

Display

  • Size
    2.8 inches, 24.3 cm2
  • Type
    QVGA LCD capacitive screen, 262K colors
  • Resolution
    240 x 320 pixels
  • Pixel Density
    143 ppi density
  • Aspect Ratio
    4:3 ratio
  • Multitouch
    Yes

Network

  • GPRS: YES
  • EDGE: YES
  • SIM
    Dual SIM, Dual Standby
  • Technology
    GSM
  • 2G Network
    GSM 850 / 900 / 1800 / 1900
  • 3G Network
    HSDPA
  • 4G Network
    LTE, VoLTE
  • Speed
    HSPA, LTE

Primary Camera

  • Camera
    0.3 MP, Digital Primary Camera
  • Resolution & Sensor
    640 x 480 Pixels
  • Features
    Rear Flash
  • Video
    Yes

Selfie Camera

  • Camera
    0.3 MP, Digital Primary Camera
  • Resolution & Sensor
    640 x 480 Pixels
  • Video
    Yes

Performance

  • OS
    KaiOS
  • Chipset
    Spectrum UniSoc 9820e
  • CPU
    Quad-Core ARM

Memory

  • RAM
    512MB
  • ROM / Internal
    4GB
  • Variant
    512MB/4GB
External Card slot
microSDHC, (Up to 32 GB)

Sound

  • Alert types
    Vibration; MP3, WAV ringtones
  • 3.5 mm Audio Jack
    Yes
  • Loudspeaker
    Yes

Battery

  • Battery Type
    Removable Li-Ion
  • Battery Capacity
    3000 mAh battery
  • Charging Time
    Up to 2:30 hours

ব্যক্তিগত রিভিউ

ডিসপ্লেঃ  এই মোবাইলের মোটামুটি মানের ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে একটি বাটন মোবাইলে যে রকম ডিসপ্লে থাকে আর কি। কিন্তু এ মোবাইলে কোন রকম টার্চ সিস্টেম রাখা হয়নি। এটি সম্পূর্ণ পিওর একটি বাটন মোবাইল।

ক্যামেরাঃ  এই মোবাইলের মেইন এবং সেলফি  উভয় ক্যামেরা হিসেবে ০.৩ মেগা পিকচারের ডিজিটাল ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। যার মাধ্যমে চালিয়ে নেওয়ার মতন ছবি তুলতে পারবেন।

পারফরম্যান্সঃ  যেহেতু এই মোবাইলের বাজেট তেমন একটা বেশি না সে ক্ষেত্রে এর চিপসেট তেমন একটা ভাল ব্যবহার করা হয়নি। কিন্তু হালকা কাজ গুলো খুব সহজেই করতে পারবেন কোন সমস্যা হবে।

গেমিংঃ এই মোবাইলে ব্যবহার করা হয়েছে ৫১২ এমবি র্যাম যা বর্তমান গেম খেলার জন্য উপযোগী নয়। তারপরও হালকা-পাতলা গেম খেলতে পারবেন।

ব্যাটারিঃ এই মোবাইলে যে ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে সেটি ফুল চার্জ হতে ২.৩০ মিনিটের মত সময় লাগবে। আর এই মোবাইলে ৩০০০ mAh এর ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে যার ফলে ২ থেকে ৩ দিন  অনায়াসে ব্যবহার করতে পারবেন।

আলাদা সুবিধাঃ আমরা অনেকেই পকেট রাউটার ক্রয় করে থাকি। সে ক্ষেত্রে আপনি চাইলে মোবাইলটি ক্রয় করতে পারেন। এর কারণ হচ্ছে এ মোবাইলে রয়েছে শক্তিশালী ব্যাটারি এবং ৪ জি ইন্টারনেট কানেকশন যার ফলে হস্পট চালু করে পকেট রাউটার হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। যেহেতু এ মোবাইলে ৪ জি ইন্টারনেট কানেকশন ব্যাবহার করা হয়েছে সেক্ষেত্রে কারো ইন্টারনেট স্পিড নিয়ে সমস্যা হওয়ার কথা নয়।

মূল্যঃ  বর্তমানে মোবাইল বাংলাদেশ ৩০০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

৩। শেষ কথা

আজকে চেষ্টা করেছি ভালো মানের এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল সম্পর্কে জানানোর। আশা করি আপনাদের সবার এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইলের আর্টিকেলটি ভালো লেগেছে, যদি এই এন্ড্রয়েড বাটন মোবাইল সম্পর্কের আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে তাহলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন, ধন্যবাদ।

 

আরো পড়ুনঃ মোবাইল হারিয়ে গেলে খুজে পাওয়ার উপায়

Follow topics bangla facebook page

Topicsbangla

জানা ও অজানা বিষয় গুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরা আমাদের মূল লক্ষ।আমাদের সাথেই থাকুন আশা করি উপকৃত হবেন।☺☺

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button